নিজস্ব প্রতিবেদক: আসন্ন ইউপি নির্বাচন থেকে সরাতে কতিপয় সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজ কর্তৃক এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর গতিরোধ করে জীবননাশের হুমকি দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগে প্রকাশ, আশাশুনির শোভনালী ইউনিয়নের গোদাড়া গ্রামের এম এ হামিদ এর পুত্র আশাশুনি উপজেলা জাতীয় পার্টি’র সহ সভাপতি মনিরুজ্জামান ডালিম আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়াম্যান প্রার্থী হিসেবে শোভনালী ইউনিয়নে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে আসছেন। বর্তমানে তিনি সাতক্ষীরা সদরের ভোমরা এলাকায় ব্যবসা করে থাকেন। স্থানীয় একটি কুচক্রী মহলের ইন্দনে সাতক্ষীরা সদরের জোড়দিয়া গ্রামের আমজাদ সরদারের পুত্র শাহিনুর সরদার (৩৮) (বর্তমানে ভোমরায় বসবাসরত) ও মঈনুর সরদার (৩২) এবং ভোমরার সিরাজুল ইসলামের পুত্র নুর মোহাম্মাদ (৩২) মিলে বিভিন্ন সময় চেয়ারম্যান প্রার্থী ডালিমকে নির্বাচন থেকে সরে দাড়াতে বলে। কিন্তু ডালিম তার নির্বাচনী প্রচারনা চালাতে থাকলে তারা তার কাছে চাঁদা দাবী করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় উল্লেখিত তিন ব্যক্তি সহ অন্যান্যরা গত ১৫ মার্চ’২১ তারিখে ভোমরার বাসায় যেয়ে ডালিমকে নানারমক ভয়ভীতি দেখায় ও জীবননাশের হুমকি দেয়। যার প্রেক্ষিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী ডালিম তাদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সদর থানায় ৯৫৭ নং এবং আশাশুনি থানায় ৮৯৪ নং পৃথক দু’টি ডায়েরী করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১মে শনিবার ভোমরা থেকে মোটরসাইকেলযোগে শোভনালী ফেরার সময় রাত পৌনে ৮টার দিকে আশাশুনির বুধহাটা ইউনিয়নের পাইথালী পৌছালে পেছন থেকে মোটরসাইকেলযোগে এসে উক্ত তিন ব্যক্তি সহ অজ্ঞাতনামা আরও ৪/৫ জন অস্ত্র শস্ত্র সহ চেয়ারম্যান প্রার্থী ডালিমের গতিরোধ করে আগামী ইউপি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য শাসায় এবং জীবননাশের হুমকি দেয়। সন্ত্রাসীরা এ সময় ডালিমের কাছে থাকা ঈদের শুভেচ্ছা পোস্টার ও মানিব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান প্রার্থী ডালিম রবিবার (২ মে) আশাশুনি থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।
উল্লেখ্য উক্ত শাহিনুর ও নুর মোহাম্মাদ এর বিরুদ্ধে কলারোয়ার বৈদ্যপুর গ্রামের গৃহবধু পাপিয়া দাশকে (২৪) তার শ^শুর ও দেবরের সহযোগিতায় ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে ভোমরা এলাকায় দু’দিন আটকে রেখে নির্যাতনের আভিযোগ রয়েছে, যা গত ২৯ এপ্রিল ২০২১ তারিখে দৈনিক পত্রদূত ও কালের চিত্র সহ বিভিন্ন পত্রিকায় প্রাকিশত হয়। এমনিভাবে তাদের বিরুদ্ধে মানবপাচার, মাদক কারবারী, চাঁদাবাজি সহ বহুবিধ অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে।
তাই উক্ত সন্ত্রাসীদের হাত থেকে জীবন জীবিকার নিরাপত্তা পেতে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী ডালিম ও তার পরিবার।
এ ব্যাপারে আশাশুনি থানা অফিসার ইনচার্জের সাথে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি মোবাইল রিসিভ করেননি। তবে শোভনালী বিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত থানার এস,আই অভিক বলেন, অভিযোগ জমা হয়েছে, তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন