আক্তারুল ইসলাম সাতক্ষীরা :
কালিগঞ্জের মথুরেশপুর ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিদের সেবায় খুশি ইউনিয়নবাসী।স্বাধীনতার পর এ ইউনিয়নের মানুষ উন্নয়নের ছোয়া থেকে বঞ্চিত থাকলেও বর্তমান চেয়ারম্যানের অক্লান্ত পরিশ্রমে মডেল ইউনিয়নে পরিনত হয়েছে কালিগঞ্জের মথুরেশপুর ইউনিয়ন পরিষদ। সরজমিন ঘুরে এলাকাবাসীর সাথে আলাপকালে জানাযায়, ইউপি চেয়ারম্যনা ও মেম্বারগণ এলাকার উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। এলাকার উন্নয়ন যেমন রাস্তাঘাট পাকা করণ, ব্রিজ কালভাট, ইটের রাস্তা, হাটবাজারের উন্নয়ন, মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দীর,প্রাইমারী স্কুলের প্রাচীর, পুকুর খনন সহ বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ সঠিক ভাবে করা হয়েছে। যার ফলে ইউনিয়নবাসী অনেক সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে। এছাড়া ২ হাজার ৪ টি রেশন কার্ড, ৩শত ৪৭ টি ভিজিডি কার্ড, ৬ হাজার ১ শত ২৫ টি ভিজিএফ কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে প্রায় ২৫ কিলোমিটার পিচের রাস্তা নির্মান করা হয়। প্রতি ওয়ার্ডে প্রায় ৭/১০টি ইটের রাস্তা নির্মান করা হয়েছে। এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য ১৫ টি পি আইও ব্রিজ, ১০ টি কালর্ভাট ও ইটের ড্রেন নির্মান করা হয়েছে। এলাকার মৎস ও কাচা মাল ব্যাবসায়ীদের জন্য কয়েকটি চাঁদনী টয়লেট বাথরুম নির্মাণ করা হয়েছে।বাস্তবায়নাধীন কাজের মধ্যে নাজিমগঞ্জ বাজারে ৩০ লক্ষ টাকার কাজ ও শীতল ওয়াপদা রাস্তার জন্য বরাদ্দ ২কোটি টাকার কাজ রয়েছে।স্বাধীনতা উত্তর এ ইউনিয়নে উল্লেখ করার মত কোন উন্নয়ন কাজ না হওয়ায় বিশেষ করে রাস্তাঘাটের উন্নয়ন না হওয়ায় পিছিয়ে পড়ে এ এলাকার জনগোষ্ঠী। পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃমিজানুর রহমান ও সদস্যগণ দ্বায়িত্ব গ্রহণের পর এসকল উন্নয়নকাজ বাস্তবায়িত হওয়ায় পরিষদের সেবায় রিতিমত খুশি ইউনিয়নবাসী। এ ইউনিয়নের একাধিক ভোটাররা এ প্রতিবেদককে জানান, এমন চেয়ারম্যান আমাদের বারবার প্রয়োজন। আগমী নির্বাচনে আমরা আবারও এ ইউনিয়নে তাকে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চাই। তবে একটি কুচক্রিমহল তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার চালাচ্ছেন।এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃমিজানুর রহমান বলেন, আমি চেয়ারম্যান হয়েছি মানুষের সেবা করার জন্য, আমি যতদিন চেয়ারম্যান থাকবো পরিষদে বরাদ্দকৃত কোন কিছুর নয়ছয় হতে দিবো না।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন