তালায় ভূমিদস্যু অজয় ঘোষের বিরুদ্ধে বোনের সংবাদ সম্মেলন

কর্তৃক ferozsatkhira
০ মন্তব্য 37 ভিউজ

প্রেস রিলিজ::
তালায় ভূমিদস্যু অজয় ঘোষের বিরুদ্ধে আপন বড় কাকার পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া সম্পর্ত্তি জবর দখল করে নেওয়ার অভিযোগে প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন চাচাতো বোন মজুশ্রী ঘোষ।

শুক্রবার(১২ ই আগস্ট) সকালে তালার ঘোষনগর গ্রামের মাষ্টার দুলাল ঘোষের মেয়ে মজুশ্রী ঘোষ প্রেসক্লাবে হাজির হয়ে এ সংবাদ সম্মেলন করে। সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করে বলেন,আমার আপন কাকা বীরমুক্তিযোদ্ধা অমল ঘোষের ছেলে অজয় কুমার ঘোষ পেশায় একজন সরকারী কর্মচারী। এর সুবাদে বিভিন্ন সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে সুসর্ম্পক থাকায় এলাকায় তার ক্ষমতা জাহির করেন। বর্তমানে সে তালার কিছু নামধারী হাইব্রিড আওয়ামীলীগ নেতা, ভূমিদস্যু,সন্ত্রাসীদের গডফাদারদের সাথে চলাফেরা করে এবং তাদের সহায়তায় নিস্বত্ববান ও দখল বিহীন ব্যক্তির কাছ হতে অবৈধভাবে জমি ক্রয় করেন। তাই উপজেলা সদরের সন্ত্রাসীদের গডফাদার ও ভূমিদস্যুদের সাথে তার আতাত থাকায় আমার পরিবারের সদস্যদের ঘোষনগরে বসবাস করা দুরুহ হয়ে পড়েছে। এই ভূমিদস্যু অজয় ঘোষ আমার বাবা মাষ্টার দুলাল ঘোষের কোন পুত্র সন্তান না থাকায় মাছিয়ারা গ্রামের গুন্ডা বাহিনী এনে ভিটাবাড়ির এক একর জমি দখল করে নেওয়ার চেষ্টা করেন যাহা নিয়ে আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। সম্প্রতি নিস্বত্ববান ব্যক্তিদের কাছ হতে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে অবৈধভাবে জমি ক্রয় করে তালায় অস্তির পরিবেশ সৃষ্টি করে চলেছেন। অজয়ের এই অশুভ আচারণ আগামীতে তালায় তারই নেতৃত্বে ভয়াবহ পরিস্থিত সম্ভাবনা রয়েছে বলে আমি মনে করছি। এই সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যু অজয় এর হাত থেকে কেউ রেহাই পাচ্ছে না। এমনকি ভূমিদস্যু অজয় গ্রামে আমার পিতার বসতবাড়ি উচ্ছেদের প্রচেষ্টা অব্যহত রেখে এখন তালায় সাধারণ মানুষের ভিতরে নৈরাজকতা সৃষ্টি করেছে।

প্রকাশ থাকে যে,তালার ঘোষনগর গ্রামের ১২৭ দাগে আমার পিতা ও অজয় এর পিতার বসতবাড়ি সেটাও অজয় একনামে অর্থাৎ তার বাবার নামে যোসাজসে রেকর্ড করেছে। তার ক্ষমতা এত বেশি যে,বর্তমানে আমি ও আমার বাবা মাষ্টার দুলাল ঘোষ নানান ভাবে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতনের মধ্য পৈত্রিক সম্পর্ত্তির উপর বসবাস করছি। এই অজয় তালার সমবায় অফিসে শূন্য পদে চাকুরী পেয়ে দীর্ঘ ১০-১২ বছর একটানা কর্মরত রয়েছেন। সে সরকারী চাকুরী করলেও শুক্র ও শনিবারবারের সাথে প্রায় প্রতিদিন সকাল-দুপুর-বিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসের অফিস সহায়ক মনিরুজ্জামান মনি সহ একাধিক ব্যক্তিদের নিয়ে বিভিন্ন অপকর্ম সম্পাদন করতে গোপন বৈঠক করেন গ্রামের বাড়িতে। তাহলে প্রশ্ন থেকে যায় এই সরকারী কর্মচারী অজয় অফিস করেন কখন ?এক কথায় বলা যায় সমবায় অফিসাটি তার বাপ-ঠাকুরদার সম্পর্ত্তি হিসেবে গড়ে তুলেছেন।

সর্বপরি আমি তালার সন্ত্রাসীদের গডফাদার ও ভূমিদস্যুদের সহিত সখ্যতাকারী ক্ষমতার অপব্যবহার করার রাজা ভূমিদস্যু অজয় ঘোষ ও তার পরিবারের হাত হতে মুক্তি চেয়ে সরকারী সহ উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন