নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ সাতক্ষীরার শ্যামনগরে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে আপত্তিকর পোস্ট দেওয়াকে কেন্দ্র করে স্থানীয় মেম্বরের নেতৃত্বে খুন জখমসহ হামলার হাত থেকে রক্ষা পেতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মোতালেব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন, শ্যামনগর উপজেলার দক্ষিণ পশ্চিম আটুলিয়া গ্রামের হাকিম ঢালীর পুত্র মহসীন ঢালী। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমার ছোট ভাই মো: আব্দুস সবুর আটুলিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য ইউপি সদস্য প্রার্থী হওয়ায় বর্তমান মেম্বর আব্দুল গফুর ঢালী বিভিন্নভাবে আমাদের হয়রানি চক্রান্ত শুরু করে। সম্প্রতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী গরিব অসহায় মানুষের মধ্যে ঈদ উপহার হিসেবে ৪৫০ টাকা প্রদান করাকে কেন্দ্র করে দক্ষিণ পশ্চিম আটুলিয়া গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের কার্তিক মন্ডলের পুত্র হোমিও প্যাথিক ডাক্তার প্রানেশ কুমার মন্ডলকে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে এবং প্রকাশ্যে কান ধরতে বলে অপমানিত করে। আমার ছোট ভাই এঘটনার তীব্র বিরোধীতা করেন এবং প্রতিবাদ করেন। এতে আব্দুল গফুর ঢালী ও তার সহযোগীরা আমার ছোট ভাইয়ের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে এক পর্যায়ে গত ১৯ মে ২১ তারিখে চুনোর ব্রীজ বাজারে আমার ছোট ভাইকে উদ্দেশ্যে করে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করতে থাকে। এছাড়া তাকে হয়রানি করার উদ্দেশ্যে জনৈক ব্যক্তি “ইৎবধশঁঢ়” নামীয় ফেসবুক আইডি খুলে গফুরের পরিবারকে জড়িয়ে বিভিন্ন ধরনের উস্কানিমূলক মানহাকির পোস্ট করে। উক্ত আইডি সম্পর্কে আমার ছোট ভাই আব্দুস সবুর কিছুই জানে না। এঘটনাকে পুঁজি করে গফুরের পুত্র সাইফুল ইসলাম উক্ত পোস্ট আমার ছোট ভাই এবং আমরা দিয়েছি মর্মে মিথ্যা অপবাদ রটিয়ে আমাদের দোষারপ করার পায়তারা চালাচ্ছেন। অথচ উক্ত আইডি সম্পর্কে আমার কেউ অবগত নই। আমার ভাই নিজের নামে “আব্দুস সবুর সমর্থক গোষ্ঠী” নামক আইডি থেকে বিভিন্ন সময়ে সরকারি অনুদান ও উন্নয়ন মূলক কাজে স্থানীয় মেম্বরের অনিয়ম ও দুর্নীতির চিত্র মাঝে মাঝে মধ্যে তুলে ধরতো। কিন্তু“ ইৎবধশঁঢ় ” নামীয় ফেসবুক আইডি দিয়ে যে উস্কানিক মূলক পোস্ট দেওয়া হয়েছে এটি সম্পর্কে সে কিছুই জানে না। উক্ত পোস্ট দেওয়াকে কেন্দ্র করে গফুর ঢালী ও তার পুত্র সাইফুল ঢালী তাদের সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে এলাকায় প্রকাশ্যে মহড়া দিচ্ছে। তারা সব সময় ৩০/৩৫ জনের বাহিনী নিয়ে এলাকায় মহড়া করে ত্রাসের রাজস্ব কায়েমের চেস্টা করে যাচ্ছে। যে কোন সময় উক্ত বাহিনী নিয়ে আমাদের উপর হামলা করে এলাকায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষসহ এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটিয়ে এলাকার পরিবেশে উত্তেজিত করতে পারে। এবিষয়ে তিনি সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন