লালমনিরহাটে যায়যায়দিনের সাংবাদিককে হুমকি : বিএমএসএস -এর উদ্বেগ, নিন্দা ও প্রতিবাদ

কর্তৃক ferozsatkhira
০ মন্তব্য 61 ভিউজ

স্টাফ রিপোর্টার :
লালমনিরহাটে তথ্য অধিকার আইনে তথ্য চাওয়ায় লালমনিরহাট জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি জে আই সমাপ্তকে নানা রকম ভয়-ভীতি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার হুমকি দিয়েছেন। এ ঘটনায় ১৮ জুলাই সোমবার রাতে লালমনিরহাট সদর থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেন সাংবাদিক জে আই সমাপ্ত।
সাধারন ডায়েরি সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ মে ২০২২ ইং তারিখে তথ্য অধিকার আইনের নীতিমালা মেনে লালমনিরহাট জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আব্দুর রহিমের নিকট তথ্য চেয়ে আবেদন করেন সাংবাদিক জে আই সমাপ্ত। কিন্তু তথ্য অধিকার আইন মানতে রাজি নন জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম। তাই তিনি যথা সময়ে তথ্য প্রদান করেননি।

পরে বিষয়টি নিয়ে গত ২১ জুন ২০২২ ইং তারিখে জেলা প্রশাসক ও সভাপতি, তথ্য অধিকার বাস্তবায়নে অবেক্ষণ (সুপারভিশন) ও পরিবীক্ষণ জেলা কমিটি লালমনিরহাটের নিকট লিখিত অভিযোগ এবং গত ২২ জুন ২০২২ ইং তারিখে তথ্য অধিকার আইনের নীতিমালা অনুযায়ী রংপুর কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের উপ পরিচালক আনোয়ারুল হকের নিকট তথ্যের জন্য আপীল করেন সাংবাদিক সমাপ্ত।

সেই আপীলের প্রেক্ষিতে গত ১৪ জুলাই ২০২২ ইং তারিখে রংপুর কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের উপ পরিচালক আনোয়ারুল হকের স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে লালমনিরহাট জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তাকে তথ্য সরবরাহের জন্য বলা হয়। যার একটি অনুলিখি সাংবাদিক সমাপ্তের ই-মেইলে গত ১৮ জুলাই ২০২২ ইং তারিখ পাঠানো হয়।

সেই চিঠির প্রেক্ষিতে জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আব্দুর রহিমের মুঠোফোনে কল করে তথ্যের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি তার মনগড়া কিছু কথা তুলে অশোভনীয় ভাষায় কথা বলতে শুরু করেন সাংবাদিক সমাপ্তের সাথে।

এক পর্যায়ে জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম বলেন “তথ্য নিতে অফিসে আয় শালা, তোর তথ্যটা বের করি। আমি লালমনিরহাটের লোক, দেখ তোর অবস্থা কি করি, তোর রিপোর্টার গিরি দেখাবো। তোর নামে মামলা করবো।” এভাবে প্রায় ৯ মিনিট নানা রকম হুমকি প্রদান করেন সে।

পরে এ ঘটনায় সোমবার রাতে লালমনিরহাট সদর থানায় একটি সাধারন ডায়েরি (যাহার নং- ৮৬৬) করেন সাংবাদিক সমাপ্ত।
এ ব্যাপারে সাংবাদিক জে আই সমাপ্ত বলেন, রংপুর কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের উপ পরিচালক আনোয়ারুল হকের স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে আমাকে তথ্য সরবরাহের জন্য লালমনিরহাট জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়। সেই চিঠির প্রেক্ষিতে তথ্য চাইলে আমাকে নানা রকম ভয়-ভীতি ও মামলার হুমকি প্রদান করেন কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম। আমি এখন মনে করছি, যে কোন সময়, যে কোন ধরনের ক্ষতি তার মাধ্যমে আমার হতে পারে। তাই থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেছি। তদন্ত করে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

লালমনিরহাট জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম বলেন, সাংবাদিক সমাপ্ত আমার ডিডি স্যারের নিকট অভিযোগ করায় আমার মাথা ঠিক ছিলো না, তাই কিছু কথা তাকে বলেছি।

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম জানান, জিডির কপি পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ উপেক্ষা করে একজন পেশাদার সাংবাদিককে হুমকি ও মিথ্যা মামলার ভয় দেখানোসহ অসদাচরণ করার হীন ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি (বিএমএসএস) -এর প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান খন্দকার আছিফুর রহমান, মহাসচিব মোঃ সুমন সরদার সহ সংগঠনের সকল কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ
এছাড়াও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ উপেক্ষা করা উক্ত মহা ক্ষমতাধর সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় সহ তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবীও জানানো হয়েছে সংগঠনের পক্ষ থেকে।

নাহলে সারাদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সহ বৃহৎ কর্মসূচির ডাক দেয়া হবে বলেও হুশিয়ারি উচ্চারণ করা হয়েছে।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন