আক্তারুল ইসলাম, সাতক্ষীরা ঃ
সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার নাকের ডগায় মহেন্দ্র ও ইজবাইক ষ্ট্যান্ডে রেজিষ্ট্রেশণ বিহীন শ্রমিকলীগের নামে চলছে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি। এ যেন চাঁদাবাজদের স্বর্গরাজ্য। দেখার যেন কেউ নেই।সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, টগর নামে একজন সিরিয়াল লেখার খাতা নিয়ে বসে আছে। তিনি প্রতিটি মহেন্দ্র ও ইজিবাইকের মালিকের নাম লিখছেন। এখানে নিয়ম করা হয়েছে, যারা এই রাস্তায় ৩ চাকার যানবহন চালাবেন এইখানে নির্দিষ্ট লোকের কাছে সিরিয়াল লেখাতে হবে। এরপর গাড়িপ্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা চাঁদা দিতে হবে। না দিলে কেহ গাড়ি চালাতে পারবে না।প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ওই ষ্টান্ডে থেকে প্রতিদিন ৭০ টি মহেন্দ্র ও ১৪৫ থেকে ১৫০ টি ইজিবাইক তালা হতে পাটকেলঘাটা, সাতক্ষীরা হতে পাটকেলঘাটা, কেশবপুরের সাগরদাঁড়ী হতে পাটকেলঘাটা যাত্রী আনা নেওয়া করে। এসকল গাড়ি হতে প্রতিদিন এই চাঁদা আদায় করা হয়। এছাড়াও হাইওয়ে পুলিশ ও সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের নামে নিজেদের লোক দিয়ে মাসিক চাঁদার টাকা আদায় করে পারকুমিরা গ্রামের সুমন কাগজী, আলআমিন ও তার বাহিনীর লোকেরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আদায়কারীরা বলেন, আমরা প্রতিদিন কালেকশনের টাকা হতে ৩০০ টাকা করে পাই। বাকি টাকা ষ্টান্ডে দায়িত্বে থাকা সুমন কাজগী ও তার লোকজন নিয়ে যায়। চুকনগর হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মেহেদী হাসান বলেন, আমাদের নামে কোথাও টাকা উঠানো হয় কি না আমার জানা নেই। আমরা কোনো জায়গা থেকে টাকা নেই না। যদি কেহ আমাদের নামে টাকা উঠায় তাহলে অপরাধ করেছে। আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি, ওই জায়গা থেকে কি ভাবে ষ্টান্ড- সারানো যায়।পাটকেলঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজমুল হুদা বলেন, মহেন্দ্র ষ্টান্ডে কোনো চাঁদাবাজি হয় কিনা আমার জানা নেই। আগে এক গ্রুপ এখানে ইউনিয়ন চালাতো এখন আর এক গ্রুপ দখল করে চালাচ্ছে। আমাদের দেখার বিষয় আইন শৃঙ্খলা ঠিক আছে কি না। যদি আইন শৃঙ্খলার অবন্নতি হয় তাহলে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন