নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ পৌত্রিক সম্পত্তি জবর দখল থেকাতে সন্ত্রাসীদের হামলায় ৩
জন আহত হয়ে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বলে জানা
যায়।
এ বিষয়ে ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের ওমরাপাড়া গ্রামের মৃত ইব্রাহিম মোড়লের
পত্র মোঃ রিপন মোড়ল বাদী হয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় ৬ জনকে আসামী করে একটি
এজাহার দায়ের করেন। সরজমিনে জানা যায়, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার
ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের দামারতোপা সুইচ গেটের পাশের ব্রহ্মরাজপুর মৌজার
জে,এল নং- ১০৩, এস,এ- ৩১৪ খতিয়ানে সাবেক ১৯৬২ দাগের ৪০ শতক জমি জমা নিয়ে
জমির মালিক দাপারপোতা গ্রামের মৃত ছদন আলী বিশ্বাসের পুত্র আনছার আলী
বিশ্বাস গংদের সাথে সাতক্ষীরা মুনজিতপুর এলাকার মৃত কাদের সরদারে পুত্র আঃ
মাজেদ সরদারের সাথে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। তথ্য অনুসন্ধানে জানা
যায়, ২০১১ সালে আনসার আলী বিশ্বাসের পৌত্রিক সম্পত্তি জোরপূর্বক ভাবে
মাজেদ সরদার গংরা দখল করিতে আসিলে আনসার আলী বাদী হয়ে বিবাদী আঃ মাজেদ
সরদারের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সহকারী জর্জ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।
যার মামলা নং- ২৪৪/১১, তাং- ২৭/১০/২০১১ খ্রি.। বিজ্ঞ আদালত বাদীর পক্ষে
রায় ঘোষনা করে। উক্ত রায়ের বিরুদ্ধে বিবাদী আঃ মাজেদ সরদার গত ইং ২০
নভেম্বর ২০১১ তারিখে সাতক্ষীরা যুগ্ন জেলা জর্জ আদালতে মামলার বিরুদ্ধে
আপিল করে। বিজ্ঞ আদালতের বিচারক মোঃ ফারুক ইকবাল গত ইং ৭ জুলাই ২০১৯
তারিখে আবারো মূল মালিক আনছার আলীর পক্ষে রায় ঘোষনা করেন। রায় অনুযায়ী
নালিশী সম্পত্তির মালিক মৃত আনছার বিশ্বাসের পুত্র গংরা ব্রহ্মরাজপুর
ইউনিয়নের দহাকুলা গ্রামের সোবহান আলীর পুত্র আব্দুস সেলিম, তাজেল সরদারের
পুত্র মাসুদ রানা, চেলারডাঙ্গা গ্রামের আরশাদ আলীর পুত্র ইশার আলী ও
ওমরাপাড়া গ্রামের ইব্রাহিম মোড়েলর পুত্র রিপন মোড়ল গণদের নামে ইং
০১/০১/২০২১ হইতে ৩১/১২/২০২৩ তারিখ পর্যন্ত ৩ বছর মেয়াদে লীজ চুক্তিপত্র
করেন। লীজ গ্রহীতা গণরা ইং ১৭/০৪/২০২১ তারিখে অনুঃ দুপুর ১ ঘটিকার সময়
ঘেরে কর্মরত অবস্থায় থাকলে বিবাদী পক্ষগণ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে
বেআইনী ভাবে জনতায় দলবদ্ধ ভাবে অনধিকার প্রবেশ করিয়া মারাত্মক
অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হইয়া ১০/১৫ জন সন্ত্রাসীরা হাতে ধারালো দা, লোহার
রড, লোহার হাতুড়ী ইত্যাদি দিয়ে মারপিট করিয়া রক্তাক্ত কাটা ফোলা জখম করে।
ওমরাপাড়া গ্রামের মৃত ইব্রাহিম মোড়লের পুত্র রিপন মোড়ল বাদী হয়ে
সাতক্ষীরা সদর থানায় ৬ জনের নামে একটি এজাহার দায়ের করে। এজাহার সূত্রে
জানা যায়, মাছখোলা গ্রামের মৃত আঃ সাত্তার পুত্র ভূমি সন্ত্রাসী আব্দুস
সবুর, মোঃ লিটন, আঃ সালাম ও আব্দুস সবুরের পুত্র মোঃ রাজু এবং শহরের
মুনজিতপুরের মৃত আব্দুল মাজেদ মাষ্টারের পুত্র রউফুজ্জামান (লাদেন),
রাশেদুজ্জামান সহ আরও অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জনের নাম উল্লেখ করে এজাহার দায়ের
করেন। এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে জানতে
চাইলে। তিনি সাংবাদিকদের জানান, এজাহারের ভিত্তিতে তদন্ত চলছে ঘটনার
সত্যতা পেলে মামলা রেকার্ড করা হবে।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন