নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার ভূমিদস্যু ও অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য খলিশাখালীর নানা অপকর্মে ব্যবহৃত এবং সেখানকার ভূমিদস্যু বাহিনী প্রধান আনারুল ও রবিউলসহ তাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় ও মদদদাতাদের ঢাকা, খুলনা, যশোর, গোপালগঞ্জ চষে বেড়ানো সাম্প্রতিক সময়ে সংবাদ মাধ্যমে আলোচিত সেই ঢাকা মেট্রো ক-০৩৩৩০৮ নাম্বারের সাদা রংয়ের প্রাইভেটকারসহ আনারুল ইসলাম (৪০) ও মোজাহিদ গাজী (২৮) নামের দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার চাঁদপুর এলাকায় চলমান ভ্রাম্যমান আদালতের সিগন্যাল ভেঙে সুজিত বিশ্বাস নামের এক পুলিশ অফিসারকে ধাক্কা দিয়ে দ্রুত গতিতে পালানোর সময় পাল্টা ধাওয়া করে হাদিপুর এলাকা থেকে আলোচিত ওই প্রাইভেটকারসহ তাদের দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আনারুল ইসলাম ওই প্রাইভেটকারটির মালিক এবং ঘটনার সময় তিনিই প্রাইভেটকারটি চালাচ্ছিলেন। তিনি খলিশাখালী লাগোয়া নোড়ারচক-চারকুনি গ্রামের কালাম সরদারের ছেলে। এছাড়া অপর গ্রেফতারকৃত মোজাহিদ হোসেন একই গ্রামের মৃত আকরাম গাজীর ছেলে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী বলেন, বুধবার বেলা ১২টার দিকে করোনা মোকাবেলায় গণপরিবহন ও যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি ও মাস্ক বাধ্যতামুলোক করতে চাঁদপুর এলাকায় সড়কে মোবাইল কোর্টের অভিযান চলছিল। এসময় ঢাকা মেট্রো ক-০৩৩৩০৮ নাম্বারের একটি সাদা রংয়ের প্রাইভেটকারসহ তাতে থাকা চালক ও আরোহীদের মুখে মাস্ক না থাকায় গতিরোধের সিগন্যাল দেয় হয়। সেসময় সেখানে দায়িত্বরত দেবহাটা থানার এসআই সুজিত বিশ্বাসকে ধাক্কা দিয়ে সিগন্যাল ভেঙে দ্রুত গতিতে ওই প্রাইভেটকারটির চালক ও আরোহীরা কালীগঞ্জ অভিমুখে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে পাল্টা ধাওয়া করে হাদিপুর এলাকা থেকে প্রাইভেটকারসহ তাদেরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এঘটনায় ভ্রাম্যমান আদালতে গ্রেফতারকৃত আনারুলকে ১ মাসের এবং মোজাহিদ গাজীকে ৭ দিনের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। একইসাথে অদ্যবধি মালিকানা ও রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত কাগজপত্র যাচাই বাছাই না হওয়ায় আটক প্রাইভেটকারটি থানা পুলিশের জিম্মায় রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন