নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগরের কুড়িকাহুনিয়ায় কপোতাক্ষ নদ থেকে আরেকটি ভাসমান মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গড়ুইমহল ঘাটে বাঁধা বালুভর্তি একটি বাল্কহেডের পাশে লাশটি ভাসতে দেখেন ওই বাল্কহেডেরই কর্মচারিরা। পরে স্থানীয়দের খবর দেন।
গত ১৬ ফেব্রুয়ারি কুড়িকাহুনিয়ায় নৌকাডুবিতে বাঁধমেরামতের ৩ শ্রমিক নিখোঁজ হয়। পরে ২ জনের লাশ পাওয়া গেলেও আরেকজনের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। স্থানীয়দের ধারণা ২২ দিন পর ভেসে ওঠা এই লাশটিই নিখোঁজ তৃতীয় ব্যাক্তির। যিনি শ্রিউলা ইউনিয়নের পুইজালা গ্রামের আব্দুল আজিজ (৫২)। আশাশুনি ইউএনও নাজমুল হুসেইন ও ওসি গোলাম কবিরও জানান, প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী লাশটি সেই নিখোঁজ শ্রমিকের। এরই মধ্যে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে পরিচয় নিশ্চিত করতে উদ্যোগ নিয়েছেন তারা। পরিবারটিকে সরকারি সহায়তা করা হবে বলেও জানিয়েছেন ইউএনও।
তবে এক্ষেত্রে অনেকের প্রশ্ন ৩ সপ্তাহ ধরে মরদেহ পানিতে থাকলেও পঁচে গলে বিচ্ছিন্ন হয়নি কেন?
এর বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যায় দেখা যায় কপোতাক্ষ নদের পানিতে প্রচন্ড মাত্রায় লবণ থাকায় এখনো পর্যন্ত মরদেহটি পুরো পঁচে গলে যায়নি। অনেকটা অক্ষত আছে।। কারণ লবন ব্যাকটেরিয়া থেকে সবকিছু প্রিজার্ভ করে।
তবে লাশটি পানিতে থাকায় অত্যাধিক ফুলে ফেঁপে উঠেছে এছাড়া প্রচন্ড দুর্গন্ধও।
এর আগে নিখোঁজ শ্রমিক বাবর আলী (৪৫) ও শফিকুল ইসলামের (৫০) মরদেহ ও কপোতাক্ষ নদ থেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন